সমস্যার মূলে ল্যাপটপ!





যুক্তরাজ্যের হ্যাম্পশায়ারের ৩০ বছর বয়সী বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি স্কট রিড ও তাঁর স্ত্রী লরা সন্তান নেওয়ার ক্ষেত্রে জটিলতার মুখে পড়েছিলেন। চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে গেলে তিনি জানান, শুক্রাণুর সমস্যা হওয়ায় সন্তান নেওয়ার ক্ষেত্রে এ জটিলতা তৈরি হয়েছে। আর এর মূলে রয়েছে ল্যাপটপ! রিড সব সময় তাঁর কোলের ওপর রেখে ল্যাপটপ ব্যবহার করতেন। খবর প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার।
পরবর্তী সময়ে চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী স্কট রিড কোলের পরিবর্তে টেবিলের ওপর রেখে ল্যাপটপ ব্যবহার করা শুরু করলে দেখা যায়, কিছুদিনের মধ্যেই তাঁর শুক্রাণুসংক্রান্ত জটিলতা কেটে গেছে।
স্কটের স্ত্রী লরা বলেন, ‘এ ধরনের কিছু ঘটতে পারে তা আগে ভাবিনি বা শুনিনি। চিকিত্সকের কথা শুনে আমরা আশ্চর্য হয়েছিলাম।’
লরা আরও বলেন, ‘স্কট সাধারণত সন্ধ্যায় টেলিভিশন দেখার সময় দুই-তিন ঘণ্টা ল্যাপটপে ফেসবুক ব্যবহার বা অন্যান্য সাধারণ কাজ করত। ল্যাপটপ ব্যবহারে যে শুক্রাণুসংক্রান্ত সমস্যা তৈরি হয়, সে সম্পর্কে আমাদের কোনো ধারণাই ছিল না। ছয় মাসের বেশি সময় ধরে সন্তান নেওয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হলে চিকিত্সকের কাছে গিয়েছিলাম। চিকিত্সক স্কটের শুক্রাণু পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। পরে স্কটের শুক্রাণু পরীক্ষা করে চিকিত্সক জানান, ল্যাপটপ থেকে নির্গত তাপের কারণে অধিকাংশ শুক্রাণুর লেজ জড়িয়ে গেছে।’
কুইন আলেকজান্দ্রা হাসপাতালের বায়োলজিক্যাল অ্যান্ড্রোলজিস্ট সু কেনওর্থি ল্যাপটপ থেকে নির্গত তাপের কারণে শুক্রাণুর ক্ষতি হওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত করেছেন।


Responses

0 Respones to "সমস্যার মূলে ল্যাপটপ!"

Popular Posts

Return to top of page Copyright © 2011 | AL AMIN ET Converted into Blogger Template by SEO Templates